ভোলায় দুর্বৃত্তের আগুনে প্রাণ গেছে সুরমার

অনলাইন ডেস্ক: ভোলার লালমোহনে দুর্বৃত্তের ছোড়া আগুনে প্রাণ গেছে সুরমা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূর।

আজ শনিবার ভোরে ভোলার লালমোহন উপজেলার চরভূতা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মহিউদ্দিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই গৃহবধূ বোরহানউদ্দিন উপজেলার দেওয়া এলাকার বাসিন্দা মো. রফিকের স্ত্রী।

স্থানীরা জানান, বড় বোন অংকুর বেগমের বাড়ি বেড়াতে আসেন সুরমা বেগম। গতকাল রাতে খাবার খেয়ে ঘরের সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে দুর্বৃত্তরা ঘরে আগুন দেয়। আগুন মুহূর্তের মধ্যে চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে চিৎকারে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে মারা যান সুরমা বেগম।

এছাড়াও সুরমার বড় বোন অংকুর বেগম (৩৫) ও তার মেয়ে খাদিজা (১০) আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে চিকিৎসক তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠান।

নিহত সুরমার দুলাভাই শফিজল বলেন, সুরমা ও তার স্বামীর সঙ্গে বিয়ের পর থেকে বনিবনা ছিল না। সুরমাকে কয়েক দফা মারধর করায় কয়েক মাস আগে সুরমা তার বাবার বাড়ি চলে আসে। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে রফিক সুরমাকে কয়েকবার হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনা সুরমার স্বামী রফিকই ঘটিয়েছে বলে তার দাবি।

লালমোহন থানার ওসি মীর খায়রুল কবির জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে আসে। অভিযুক্ত রফিক পলাতক রয়েছে। পুরো ঘটনার তদন্ত চলছে।