গণশুনানির উদ্দেশ্য নিয়ে যা বললেন ড. কামাল

অনলাইন ডেস্ক : গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ওপর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি আজ শুক্রবার শুরু হয়েছে।
এদিন সকালে সুপ্রিমকোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে শুরু হয় এই গণশুনানি।
গণশুনানি শুরুর প্রাক্কালে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন এর উদ্দেশ্য নিয়ে কথা বলেন।
ড. কামাল হোসেন বলেন, এ গণশুনানির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সংবিধানের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো। সংবিধানে বলা আছে, ‘দেশের জনগণ এই দেশের মালিক।’
তিনি আরো বলেন, সংবিধানের ৭ম অনুচ্ছেদে লেখা আছে জনগণ ক্ষমতার মালিক। এবার যে নির্বাচন হয়েছে, সেটা নিয়ে প্রার্থীদের অনেকে ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছেন।
ড. কামাল বলেন, নির্বাচনে কি ঘটেছে সেটা জনগণকে জানানো দরকার। জনগণ যারা ক্ষমতার মালিক হিসেবে ভোটের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করতে চেয়েছিলেন, তাদেরকে নির্বাচনের অনিয়ম, প্রকৃত ঘটনা জানানো, নির্বাচনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরা উচিত। কোর্টে যেটা হবে, মামলা ফাইল করা হয়েছে, সেটা হবে। কিন্তু জনগণ ক্ষমতার মালিক হিসেবে তাদেরকেও জানানো দরকার।
তিনি বলেন, আমরা বিচারক না, কোনো বিচার করার ক্ষমতা আমাদের নাই, কর্তব্যও নাই। শুনানি হচ্ছে গণশুনানি, জনগণের উদ্দেশে এরা বক্তব্য রাখবেন। বিচার যেটা হচ্ছে সেটা ট্রাইব্যুনালে হবে। আর গণআদালত যেটা বলা হয় সেটার বিচার জনগণ করবে। আমরা এসেছি অনুষ্ঠানটা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা হোক, সেজন্য। যে বক্তব্যগুলো আসবে সেগুলো পরে প্রকাশ করা হবে। বই আকারেও প্রকাশ করা হবে। সবার বক্তব্য রেকর্ড করা হবে।